বিএনপির অত্যাচার তুলে ধরতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা: বিএনপির আমলে জাতীয় পার্টির (জাপা) নেতাকর্মীদের ওপর যে অত্যাচার নির্যাতন হয়েছিল তার চিত্র দেশবাসীর কাছে তুলে ধরতে সংশ্লিষ্টদের পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (২১ মে) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে অনানুষ্ঠানিক এক আলোচনার তিনি এ পরামর্শ দেন। এতে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বৈঠকে অংশ নেওয়া একাধিক মন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছে বাংলানিউজ। সূত্র জানায়, বৈঠক শেষে চলমান রাজনৈতিক প্রসঙ্গ নিয়ে অনানুষ্ঠানিক আলোচনা ওঠে। এ সময় কথা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ১৯৯১ সালে বিএনপি সরকারের সময় জাতীয় পার্টি যে এত মার খেলো, এতো অত্যাচার-নির্যাতনের শিকার হলো সেটা তারা বলে না কেন? জাতীয় পর্টি সেই অত্যাচার নির্যাতনের চিত্র তো তুলে ধরতে পারে।

বৈঠক সূত্র আরও জানায়, এ সময় গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়েও আলোচনা হয়। তখন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সদ্য অনুষ্ঠিত খুলনা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের মতো গাজীপুর সিটি করপোরেশেন নির্বাচনেও আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, খুলনা সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করায় দলের মেয়র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। খুলনার নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। তিন জায়গায় ঝামেলা হয়েছিল সেখানকার নির্বাচন তো বন্ধ রয়েছে।

‘কিন্তু বিএনপি যেভাবে অভিযোগ করছে, সে রকম কোনো সমস্যা হয়নি। সমস্যা হলে বিএনপির প্রার্থী এতো ভোট কীভাবে পেলেন? সেখানে আমাদের দলের নেতাকর্মীরা এক হয়ে কাজ করেছেন। আওয়ামী লীগের প্রার্থী তালুকদার খালেকের ইমেজ ভালো। এর আগে যখন তিনি মেয়র ছিলেন তখন সেখানে অনেক কাজ করেছেন। এজন্যেই তিনি বিজয়ী হয়েছেন।’

সূত্র আরও বলছে, আগামী ২৬ জুন গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে দলীয় নেতাকর্মীদের করার নির্দেশ দিয়ে আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেছেন, আমি কোনো সমস্যা, কোনো ঝামেলার কথা শুনতে চাই না। ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে।

বৈঠকে উপস্থিত মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকির উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, দলীয় কোনো কোন্দল যাতে না থাকে সে বিষয়টি দেখতে হবে। কে প্রার্থী এটা বাদ দিয়ে নৌকার প্রার্থীর পক্ষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। দলের স্থানীয় সংসদ সদস্য (এমপি) ও নেতা-কর্মীদের নিয়ে নৌকার প্রার্থীর পক্ষে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে এই মন্ত্রী এবং প্রতিমন্ত্রীকে নির্দেশনা দেন তিনি।




  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত


বাংলাদেশ ক্যাটাগরির আরও খবর পড়ুন