প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারকে ৮০৩২ রোহিঙ্গার তালিকা

বৈঠক সূত্র জানায়, শুক্রবারের বৈঠকে নির্ধারিত আলোচ্যসূচি ছিল ছয়টি। এর মধ্যে সবেচেয়ে বেশি গুরুত্ব পায় ইয়াবা চোরাচালান বন্ধ এবং রোহিঙ্গা ইস্যু। বৈঠকের শুরুতেই বাংলাদেশ পক্ষ থেকে মিয়ানমারের সীমান্তবর্তী এলাকার কারখানা থেকে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা চোরাচালানের মাধ্যমে বাংলাদেশে প্রবেশ করার তথ্য তুলে ধরা হয়। এ সময় মিয়ানমারের রাখাইনের সীমান্ত এলাকায় অবস্থিত ৪৯টি ইয়াবা কারখানার তালিকাও হস্তান্তর করা হয়। এ সময় মিয়ানমারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তারা তদন্ত করে অবশ্যই এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবেন। রোহিঙ্গা ইস্যুর আলোচনায় বাংলাদেশ পক্ষ থেকে সরাসরি প্রত্যাবাসন শুরুর বিষয়ে দিন-ক্ষণ জানতে চাওয়া হয়। তবে এখনই তা ঠিক করতে রাজি হয়নি মিয়ানমার কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া সীমান্তে দু'দেশের লিয়াজোঁ অফিস স্থাপন, যৌথ টহল কার্যক্রম জোরদার করা এবং সীমান্তে হত্যা শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনার বিষয়ে আলোচনা হয়।




  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত


আন্তর্জাতিক ক্যাটাগরির আরও খবর পড়ুন