না ফেরার দেশে মুক্তামনি

বিরল রোগ হেমানজিওমায় আক্রান্ত সাতক্ষীরার শিশু মুক্তামনি মারা গেছে। (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। আজ বুধবার সকালে না ফেরার দেশে চলে যায় সে।

মুক্তামনির নানা ফকির আহমেদ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, 'আজ বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে সদর উপজেলার কামারবায়সা গ্রামে অবস্থিত নিজ বাড়িতে মারা গেছে মুক্তামনি।'

২০১৭ সালের জুলাই মাসে মুক্তামনিকে নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এরপর শিশুটির চিকিৎসার দায়িত্ব নেন স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ বিভাগের সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুক্তামনির চিকিৎসার ব্যয়ভার বহনের দায়িত্ব নেন।

মুক্তামনির চিকিৎসার জন্য মেডিক্যাল বোর্ড গঠনসহ সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের সঙ্গেও যোগাযোগ করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ। দীর্ঘ ছয় মাস চিকিৎসার পর হাতের অবস্থা কিছুটা ভালো হলে তাকে এক মাসের জন্য গ্রামের বাড়িতে আসার অনুমতি দেওয়া হয়। বাড়িতে ফেরার পর আর ঢাকায় নেওয়া হয়নি তাকে। তবে চিকিৎসকের পরামর্শে সেখানেই তার চিকিৎসা চলছিল।

বাড়ি ফিরে যাওয়ার পর গত সপ্তাহে শারীরিক অবস্থার অবনতি হয় মুক্তার। তার অস্ত্রপচার করা সেই ডান হাতটি ফের ফুলে যায়। কিছু জায়গায় ফুলে গিয়ে ফেটে যায়। আবারো আগের মতো জন্মাতে থাকে পোকা। অস্ত্রোপচার করা স্থানে ফুটো হয়ে রক্ত ঝরতে থাকে।

এরই মধ্যে চিকিৎসকদের সব চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়ে এবং দেশের মানুষের ভালোবাসার মায়া কাটিয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ল মুক্তামনি।




  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত


বাংলাদেশ ক্যাটাগরির আরও খবর পড়ুন