ইরান-বিরোধী নিষেধাজ্ঞা মানব না: সাফ জানিয়ে দিলেন এরদোগান

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান ইরানের বিরুদ্ধে আমেরিকার নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহালকে ‘ভুল পদক্ষেপ’ হিসেবে আখ্যায়িত করে বলেছেন, “আমরা এ নিষেধাজ্ঞা মানব না।” তিনি আজ (মঙ্গলবার) আঙ্কারায় পার্লামেন্টারি গ্রুপের বৈঠক শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “বিশ্বকে অস্থিতিশীল করার লক্ষ্যে এ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।”

এরদোগান আরো বলেন, “আমরা একটি সাম্রাজ্যবাদী বিশ্বে বসবাস করতে চাই না।” তুর্কি প্রেসিডেন্ট বলেন, আন্তর্জাতিক আইন ও কূটনৈতিক শিষ্টাচার লঙ্ঘন করে ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করা হয়েছে।

এর আগে আজ দিনের শুরুতে জাপান সফররত তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভুসওগ্লু ইরানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করায় আমেরিকার তীব্র নিন্দা জানান। তিনি বলেন, ইরানকে একঘরে করে ফেলার চেষ্টা হঠকারী ও ‘ভয়ঙ্কর’।

মেভলুত চাভুসওগ্লু

ছয় মাস আগে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেয়া এক ঘোষণা অনুযায়ী গতকাল (সোমবার) থেকে ইরানের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় দফা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে আমেরিকা। এবারের নিষেধাজ্ঞায় ইরানের তেল রপ্তানি ও বহির্বিশ্বের সঙ্গে ইরানের ব্যাংকিং লেনদেনকে টার্গেট করা হয়েছে।

২০১৫ সালে আমেরিকাসহ ছয় জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে স্বাক্ষরিত পরমাণু সমঝোতার ভিত্তিতে এসব নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়া হয়েছিল। গত মে মাসে ট্রাম্প ওই সমঝোতা থেকে একতরফাভাবে তার দেশকে বের করে নেন।

ওয়াশিংটন এর আগে হুমকি দিয়েছিল, ইরানের তেল রপ্তানি শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে চায় তারা। কিন্তু নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হওয়ার দু’দিন আগে মার্কিন সরকার তুরস্কের পাশাপাশি চীন, ভারত, ইতালি, গ্রিস, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া ও তাইওয়ানকে ইরানের কাছ থেকে তেল কেনার অনুমতি দিয়েছে ওয়াশিংটন।

জাপান সফররত তুর্কি পররাষ্ট্রমন্ত্রী আজ টোকিওতে আরো বলেন, “আমি খোলাখুলি বলতে চাই, ইরানকে কোণঠাসা করে ফেলার প্রচেষ্টা বোকামি ছাড়া আর কিছু নয় এবং এ পদক্ষেপ অত্যন্ত ‘ভয়ঙ্কর’। মার্কিন সরকার নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে ইরানের জনগণকে শাস্তি দিচ্ছে যা সম্পূর্ণ অনুচিত। নিষেধাজ্ঞা দিয়ে লক্ষ্য অর্জন করা যাবে বলে উল্লেখ করে চাভুসওগ্লু বলেন, ইরানের সঙ্গে সংলাপে বসার কোনো বিকল্প নেই।




  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত


আন্তর্জাতিক ক্যাটাগরির আরও খবর পড়ুন